বিখ্যাত সাহিত্যিক ভলতেয়ারের প্রেমিকাকে লেখা চিঠি

বিখ্যাত সাহিত্যিক ভলতেয়ারের প্রেমের চিঠি
Picture source : freesvg.org

সাহিত্যিক ভলতেয়ারের প্রেমের চিঠি


বিখ্যাত সাহিত্যিক ভলতেয়ারের প্রেমিকাকে লেখা চিঠি সংরক্ষণ করে রাখা আছে আজও। প্রেমিকার উদ্দেশ্যে লিখলেও, প্রেমের থেকে আশঙ্কার কথা উল্লেখ করেছিলেন অনেক বেশি। অবশ্যই আপনার জানতে ইচ্ছে করবে যে কোন পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে চিঠিটি লিখেছিলেন এবং এই প্রেমের পরিণতি কি হয়েছিল।

সারা পৃথিবীব্যাপী বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ঐতিহাসিক ব্যক্তিত্ব তাদের প্রিয় মানুষের সাথে নিজেদের ভাব আদান প্রদান করে নিয়েছেন চিঠির মাধ্যমে। সেই চিঠি লেখার প্রেক্ষাপট কেমন ছিল। সেই প্রেম আদতেও সফল হয়েছিল কিনা। আরো জানতে ইচ্ছে করে এত ক্রিয়েটিভ মানুষেরা সত্যি কি প্রেমের জন্য সময় বার করতে পারতেন। ইত্যাদি নানা বিষয় জানতে আমাদের মন উঁকি মারে তাদের ব্যক্তিগত জীবনে।

জানতে ইচ্ছা হয় সেই সমস্ত বিখ্যাত ব্যক্তিত্বের প্রেমের জীবন কেমন ছিল। কেমন ছিল তাদের প্রেমিকা বা প্রেমিকেরা।


সাহিত্যিক ভলতেয়ার


এমনই একজন বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব ফ্রান্সের খ্যাতনামা দার্শনিক এবং সাহিত্যিক ভলতেয়ার। মহান লেখক এবং দার্শনিক হওয়া সত্ত্বেও তাঁর রাজনৈতিক এবং ব্যক্তিগত জীবনের উভয় ক্ষেত্রেই আলোচিত ছিলেন।

প্রচলিত ভ্রান্ত সমাজ ব্যবস্থার বিরুদ্ধে তিনি রুখে দাঁড়িয়ে ছিলেন। তাই একাধিকবার তাকে কারারুদ্ধ করা হয়। নির্মমভাবে তাকে অত্যাচার করা হয় এবং তার লেখাগুলো কে পুড়িয়ে ফেলা হয়। 


আবেগপূর্ণ সম্পর্ক


এত ব্যস্ত জীবনেও ভলতেয়ারের অসংখ্য আবেগপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। বিশেষ করে ক্যাথরিন অলিম্প ডু নায়ার এর সঙ্গে তার গভীর সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সম্পর্কে জড়িয়ে যাওয়ার ইতিহাস রয়েছে। এমনকি তিনি তার ভাইজির প্রেমেও পরেছিলেন।

প্রেমিকাদের সাথে প্রচুর পরিমাণে ব্যক্তিগত চিঠিপত্রে নিযুক্ত ছিলেন তিনি। এ থেকেই বোঝা যায় একজন বিখ্যাত দার্শনিক এবং সাহিত্যিক হওয়া সত্বেও তিনি একজন ভালো মানের প্রেমিকও ছিলেন। তার প্রেমের জীবন থেকে একটি চিঠি তার প্রেমিকা ক্যাথরিন অলিম্প ডু নায়ার কে উদ্দেশ্য করে লেখা নিয়ে আজকের লেখা।


চিঠি লেখার প্রেক্ষাপট


সেসময় ভলতেয়ার নেদারল্যান্ডসে বসবাস করছিলেন এবং ফ্রান্স বিরোধী রিফিউজি এক মহিলার সঙ্গে প্রেমে আবদ্ধ হন। তার প্রেমিকার মা এবং ফরাসি রাষ্ট্রদূত তাদের সম্পর্ককের ব্যাপারে জানতে পারেন এবং এই সম্পর্ককে অস্বীকার করেন। তাই দরিদ্র ভলতেয়ারকে কারাগারে নিক্ষেপ করে সুন্দর এবং প্রিয় বান্ধবী থেকে দূরে রাখা হয়। তবে ভলতেয়ার পালিয়ে যেতে সক্ষম হন।





ভলতেয়ার এর লেখা চিঠি


রাজার নামে আমি এখানে বন্দি। তারা আমার জীবন নিয়ে নিতে পারে, কিন্তু তোমার প্রতি আমার ভালোবাসা কদাচ নয়। হ্যাঁ, প্রিয় বান্ধবী আমার, আজ রাত্রিতে আমি তোমার সঙ্গে দেখা করব, যদি তার জন্য আমাকে ফাঁসি যেতে হয় তথাপি।
ঈশ্বরের দোহাই, যে নিরাশার ভাষায় তুমি পত্র লেখ সে ভাষায় আমার সঙ্গে কথা বলো না।
তোমাকে বাঁচতে হবে এবং সতর্ক হতে হবে। তোমার সর্বাধিক প্রবল শত্রু ভেবে তোমার মাতৃদেবী সম্পর্কে সতর্ক থাকবে। কি বলছি শোনো! প্রত্যেকের সম্পর্কে সতর্ক থাকবে; কাউকে বিশ্বাস করো না।

প্রস্তুত হয়ে থেকো, চাঁদ ওঠার সঙ্গে সঙ্গে, আমি ছদ্মবেশে হোটেল থেকে বেরিয়ে পড়ব, গাড়ি ভাড়া নেব, এবং আমরা বায়ুর গতিতে সেভেনিঞ্জেনে পৌঁছাব।

আমি সঙ্গে কাগজপত্র আর কালি নেব, আমরা আমাদের প্রেম পত্র লিখবো সেখানে। যদি সত্যিই আমাকে ভালোবাসো তো নিজেকে আশ্বস্ত করো, আর তোমার সমুদয় শক্তি ও উপস্থিত বুদ্ধিকে কাজে লাগাও।

তোমার মা যেন কিছুই টের না পান; তুমি তোমার একটি ছবি আনতে চেষ্টা করো; আর বিশ্বাস রেখো, পৃথিবীর জঘন্যতম অত্যাচারও আমাকে তোমার সেবা থেকে ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না। না, তোমার থেকে আমাকে বিচ্ছিন্ন করার কোন শক্তি পৃথিবীতে নেই; সততার উপর আমাদের প্রেম প্রতিষ্ঠিত।

আমরা যতদিন বাঁচবো ততদিন আমাদের প্রেমও বাঁচবে। বিদায়, এমন কিছু নেই পৃথিবীতে যা আমি তোমার জন্য দুঃসাহসিকতায় বরণ করব না। অবশ্য, তার চেয়ে ঢের বেশি কিছু তুমি পাবার যোগ্য। আমার আপন হৃদয়, বিদায়। 

ভলতেয়ার ...

বিখ্যাত সাহিত্যিক ও দার্শনিক ভলতেয়ার এর প্রেম সফলতা না পেলেও তার প্রেমিক মনের পরিচয় সবাই পেয়েছেন। 

আজকের লেখা টি ভাল লাগলে কমেন্টে জানাতে পারেন। এছাড়াও আমাদের ইউটিউব চ্যানেল মন জংশন এ ঘুরে আসতে পারেন আরো পুরাতনী তথ্য জানার জন্য, ধন্যবাদ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ